বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সূত্র আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে করোনা পজিটিভ ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এ পর্যন্ত হাসপাতালটিতে ৩১৫ জনের মৃত্যু হলো। এর মধ্যে আইসোলেশনে ২২০ জন এবং করোনা পজিটিভ ওয়ার্ডে ৯৫ জনের মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের আরএমও কাজী এ কে এম রাসেল বলেন, হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা কমে আসছে। গত জুলাই মাসে প্রতিদিন ৩৫ থেকে ৪০ জন রোগী ভর্তি হতেন। চলতি আগস্ট মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে রোগীর সংখ্যা কমতে শুরু করে। গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ১০ জন এবং আইসোলেশনে ১০ জনসহ মোট ২০ জন রোগী ভর্তি হন।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩১ জন করোনা শনাক্ত হয়। তাঁদের মধ্যে জেলা সদরে ১৬ জন, সাটুরিয়ায় দুজন, দৌলতপুরে একজন, শিবালয়ে তিনজন, ঘিওরে একজন, হরিরামপুরে তিনজন এবং সিঙ্গাইরে পাঁচজন রয়েছেন। এ পর্যন্ত জেলায় ৭ হাজার ৮৭৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ৬ হাজার ৫ জন সুস্থ হয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত অন্য রোগীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে ও হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্যসচিব এবং সিভিল সার্জন আনোয়ারুল আমিন আখন্দ বলেন, জেলায় করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। গত জুলাই মাসে করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহতা ছিল। চলতি আগস্ট মাসের মাঝামাঝি থেকে জেলায় করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু কমে আসে। সবাই যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে এবং মাস্ক ব্যবহার করলে করোনার সংক্রমণের হার আরও কমে আসবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন