এ ব্যাপারে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ডিবির পোশাক পরে দুর্বৃত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারেন। এ ছাড়া ডিবির কোনো সদস্য এ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকলে তাঁদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লিখিত অভিযোগ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা গেছে, আজ বেলা ১১টার দিকে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের অদূরে নারাঙ্গাই এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে কর্নেল মালেক টাওয়ারের সামনে মোটরসাইকেল রেখে দেলোয়ার হোসেন রাস্তা পার হন। এরপর ন্যাশনাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের (এনপিআই) সামনে দোকানে লেনদেন শেষ করে মোটরসাইকেলের কাছে যেতে মহাসড়ক পার হচ্ছিলেন। হঠাৎ একটি ব্যক্তিগত গাড়িতে ডিবি পুলিশের পোশাক পরিহিত পাঁচ ব্যক্তি এসে তাঁকে গাড়িতে উঠতে বলেন। তবে তিনি গাড়িতে উঠতে না চাইলে তাঁকে জোর করে গাড়িতে তুলে হাতকড়া লাগানো হয়। এরপর তাঁর মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে গোলড়ার দিকে তাঁকে নিয়ে যেতে থাকেন। এ সময় তাঁরা দেলোয়ারকে মারধর করে তাঁর কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকা, তিনটি মুঠোফোন, ড্রাইভিং লাইসেন্স, জাতীয় পরিচয়পত্র ও টিকা কার্ড ছিনিয়ে নেন।

দেলোয়ার হোসেন বলেন, টাকা ও মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়ার পর মহাসড়কের বারবাড়িয়া এলাকায় তাঁকে ফেলে দিয়ে গাড়ি নিয়ে দুর্বৃত্তরা ঢাকার আশুলিয়ার নবীনগরের দিকে চলে যান। তাৎক্ষণিক তিনি ঘটনাটি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানান।

লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর রউফ সরকার বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত ও তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন