বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রতন ও পলাশ দুজনই স্থানীয় কালীগঙ্গা নদীতে মাছ শিকার করতেন। মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে তাঁদের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। এদিকে ওই গ্রামের এক তরুণীর সঙ্গে পলাশের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তবে ওই তরুণীর সঙ্গেই রতন তাঁর ছেলেকে বিয়ে দেন। এসব বিষয় নিয়ে রতনের সঙ্গে পলাশের বিরোধ চলে আসছিল।

এদিকে আজ সকাল সাতটার দিকে পলাশ দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রতনকে গুরুতর আহত করেন। এ সময় স্থানীয় লোকজন পলাশকে আটক করে গণপিটুনি দেন। এরপর তাঁরা তাঁকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ভাস্কর সাহা বলেন, ঘটনার পর গুরুতর আহত রতনকে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। তবে তাঁর অবস্থা আশঙ্কজনক হওয়ায় চিকিৎসকেরা তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে স্থানান্তর করেছেন।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন জেলার হিন্দু মহাজোটের নেতারা। আজ সকালে মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে এ দাবি জানানো হয়। জেলা হিন্দু মহাজোটের সভাপতি গৌরাঙ্গ সরকার বলেন, এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং হামলাকারীদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান বলেন, অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত এক যুবককে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন