বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হরিরামপুরে বহিষ্কার হওয়া ১২ জন হলেন গালা ইউপিতে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মিঠু মোল্লা; চালা ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য শামসুল আলম বিশ্বাস ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সেলিম মোল্লা; কাঞ্চনপুর ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু হেনা মোস্তফা কামাল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আফজাল হোসেন ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আমির হোসেন; গোপীনাথপুর ইউপিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মিলন বিশ্বাস; হারুকান্দি ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য আসাদুজ্জামান; আজিমনগর ইউপিতে ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য আরব আলী শেখ; বলড়া ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আইয়ুব আলী; রামকৃষ্ণপুর ইউপির চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য কামাল হোসেন এবং সুতালড়ী ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সেকেন্দার বিশ্বাস।

এদিকে দৌলতপুর উপজেলার বহিষ্কার হওয়া ১২ জন হলেন চরকাটারি ইউপিতে ইউনিয়ন কৃষক লীগের আহ্বায়ক মহসিন আলম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য আইয়ুব আলী মণ্ডল, ইকবাল হোসেন ও বারেক মণ্ডল; বাঘুটিয়া ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য তোফাজ্জল হোসেন; জিয়নপুর ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য আতোয়ার রহমান; চকমিরপুর ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুহাম্মদ শওকত আলী, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক জুয়েল রানা; কলিয়া ইউপিতে জেলা প্রজন্ম লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু হানিফ; ধামশ্বর ইউপিতে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি তারেক রহমান এবং উপজেলা যুবলীগের উপদেষ্টা সদস্য আবদুল মজিদ।

বহিষ্কারের বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী কমিটির নির্দেশ মোতাবেক জেলার হরিরামপুর ও দৌলতপুর উপজেলায় আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলের মনোনয়নপ্রাপ্ত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় দলের গঠনতন্ত্রের ৪৭/১১ ধারা অনুযায়ী ওই ২৪ জনকে বহিষ্কার করা হয়।
বহিষ্কার হওয়া হারুকান্দি ইউপির চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বলেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরে দলের জন্য অনেক শ্রম দিয়েছেন। চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকায় ইউনিয়নবাসীর সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্ক রয়েছে। জনগণের চাপেই তিনি নির্বাচন করছেন। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম বলেন, দলীয় পদে থেকে যাঁরা ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন, তাঁদের সবাইকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের সব ধরনের পদ থেকে তাঁদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া দলীয় পদে থেকে যাঁরা নৌকার বিরুদ্ধে অন্য প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন, তাঁদের সতর্ক করা হয়েছে। কেউ নৌকা প্রতীকের বাইরে প্রকাশে বা গোপনে প্রচারণায় অংশ নিলে, তাঁর বিরুদ্ধেও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন