বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মেজবাউল হক বলেন, মামলার আবেদনের ওপর শুনানি হয়েছে। বিচারক এ বিষয়ে পরে আদেশ দেবেন। এই ক্ষেত্রে মামলা চলতে পারে বা তদন্তের জন্য দিতে পারেন আদালত। আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারিও হতে পারে।

মামলার বাদী আজাদ হোসেন খান মানিকগঞ্জ জেলা বিএনপির সহসভাপতি এবং জেলা জজ আদালতের সাবেক সরকারি কৌঁসুলি (পিপি)। এজাহারে তিনি উল্লেখ করেছেন, ১ ডিসেম্বর মুরাদ হাসানের সাক্ষাৎকার নেন নাহিদ হেলাল এবং তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে তা প্রচার করেন। এ ঘটনায় বাদী আজ মামলা করেন। দণ্ডবিধির ১৫৩ (ক), ৫০৫ ও ৫০৯ ধারায় এই মামলার আবেদন করা হয়।

বাদী অভিযোগ করে বলেন, ওই অনুষ্ঠানে উদ্দেশ্যমূলকভাবে জাইমা রহমান সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন মুরাদ হাসান। এটি শুধু জাইমার জন্য সম্মানহানিকর নয়, নারীসমাজের জন্যও অপমানজনক।

আজাদ হোসেন খান বলেন, ‘আদালতে মামলার এজাহারের শুনানি হয়েছে। বিচারক পরে আদেশ দেবেন। এই মামলায় আটজনকে সাক্ষী করা হয়েছে। মামলায় বিচারক কী আদেশ দেন, সেই অপেক্ষায় আছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন