বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
হিরণের ভাষ্য অনুযায়ী জ্ঞান ফিরে পাওয়ার পর তিনি হাত-পা বাঁধা অবস্থায় রবিনের লাশ দেখতে পান। দুর্বৃত্তরা হিরণের ইজিবাইক ও তাঁর কাছে থাকা ২ হাজার ৫০০ টাকা এবং নিহত রবিনের কাছে থাকা ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় বলে দাবি করেছেন হিরণ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিন গতকাল রোববার দিবাগত রাত তিনটায় হিরণের ইজিবাইকে চড়ে মানিকগঞ্জ শহরের সবজির আড়তে যাচ্ছিলেন। তেরদোনা এলাকায় পৌঁছালে রাস্তায় বাঁশ ফেলে ৮ থেকে ১০ জন দুর্বৃত্ত তাঁদের গতি রোধ করেন। এরপর রবিন ও হিরণকে দুই দিকে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় দুর্বৃত্তরা লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করলে হিরণ অচেতন হয়ে পড়েন।

সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, হিরণের ভাষ্য অনুযায়ী জ্ঞান ফিরে পাওয়ার পর তিনি হাত-পা বাঁধা অবস্থায় রবিনের লাশ দেখতে পান। দুর্বৃত্তরা হিরণের ইজিবাইক ও তাঁর কাছে থাকা ২ হাজার ৫০০ টাকা এবং নিহত রবিনের কাছে থাকা ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় বলে দাবি করেছেন হিরণ।

এসআই মনিরুজ্জামন বলেন, রবিনকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান বলেন, আজ সকালে রবিনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্তে পুলিশ কাজ করছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন