বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মাহাদি এখনো হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন। তিনি বিছানায় বসে মুখে খেতে পারছেন। শারীরিক অবস্থা ভালো রয়েছে বলে চিকিৎসকেরা জানান। নিউরোসার্জারির চিকিৎসকেরা নিয়মিত তাঁর দেখাশোনা করেছেন। আজ নিউরোসার্জারির সহকারী অধ্যাপক সাইফুল আলম তাঁকে দেখতে যান। এ সময় নতুন করে ড্রেসিং করে দেওয়া হয়।

জানতে চাইলে নিউরোসার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহফুজুল কাদের বলেন, মাহাদির অস্ত্রোপচারের স্থানে ড্রেসিং করা হয়েছে। ব্যান্ডেজ বদলে দেওয়া হয়েছে। এর আগেও একবার ড্রেসিং করা হয়েছিল।

গত ২৯ অক্টোবর চমেক ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এ সময় দুই ছাত্র আহত হন। তাঁরা চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী। ঘটনার জের ধরে পরের দিন চমেক ক্যাম্পাসের সামনের রাস্তায় মাহাদির ওপর আক্রমণ করা হয়।

মাহাদি ছাত্রলীগের অন্য পক্ষের সমর্থক। এই পক্ষ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর অনুসারী। হামলার পর ওই দিনই তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়। অস্ত্রোপচারের সময় তাঁর মাথার খুলির হাড়ের একটি অংশ খুলে পেটের চামড়ার নিচে রেখে দেওয়া হয়। এরপর থেকে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। এদিকে মারামারি ও হামলার ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন