default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মায়ের করা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাদকাসক্ত ছেলেকে এক হাজার টাকা জরিমানা ও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ বড়ুয়া এই দণ্ড দেন।

সাজাপ্রাপ্ত ওই যুবক হলেন সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের বেতবাড়িয়া গ্রামের বজলু মিয়ার ছেলে হৃদয় মিয়া (২৬)। তাঁকে পুলিশের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে তাঁর মা সবজান বেগম মাদকাসক্ত ছেলের বিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে অভিযোগ করেন।

বিজ্ঞাপন

সবজান বেগম জানান, হৃদয় সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালাতেন। চার মাস আগে তিনি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। মাদকের টাকার জন্য হৃদয় প্রায়ই বাড়িতে অত্যাচার করতেন। নিজের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ কেটে রক্তাক্ত করে ফেলতেন। সম্প্রতি তাঁর অত্যাচারের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। মঙ্গলবার রাতে তিনি নিজের ঘরে ভাঙচুর চালান ও আগুন লাগিয়ে দেন। অতিষ্ঠ হয়ে কোনো উপায় না পেয়ে তিনি ইউএনওর কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।

ইউএনও পঙ্কজ বড়ুয়া বলেন, মাদকাসক্ত হয়ে ওই যুবক পরিবার ও বাইরে মানুষের ওপর অত্যাচার চালাতেন। তাঁর মা এ বিষয়ে অভিযোগ করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তাঁকে এক বছরের কারাদণ্ড ও এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মাদক সেবন ও অত্যাচারের কথা স্বীকার করেছেন হৃদয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান, বুধল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল হক ও সদর থানা–পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য পড়ুন 0