default-image

দরিদ্র মা রহিমা বেগম মাটি কেটে রাস্তা মেরামতের কাজ করছিলেন। পাশেই প্রতিবন্ধী শিশুপুত্র রাকিব হোসাইন (১১) খেলছিল। হঠাৎ দ্রুতগতির একটি মোটরসাইকেল এসে চাপা দেয় রাকিবকে। হাসপাতালে নেওয়ার পথেই মৃত্যু হয় তার।

আজ রোববার দুপুরে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের তুলাতুলি রাখাইন পল্লির সামনের সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, রহিমা বেগমের স্বামী ইসমাইল মিয়া মারা যাওয়ার পর প্রতিবন্ধী ছেলে রাকিবকে নিয়ে রহিমা বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের মধুখালী আবাসনে বসবাস করছেন। তিনি গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের ৪০ দিনের কর্মসূচির আওতায় রাখাইন পল্লির সামনের রাস্তা উন্নয়নের কাজে নারী শ্রমিক হিসেবে কাজ করছেন।

রোববার সকালে শিশুপুত্র রাকিবকে নিয়ে মাটি কেটে সড়কের কাজ করছিলেন রহিমা। এ সময় তাঁর শিশুপুত্র রাকিব পাশের খেলা করছিল। খেলতে খেলতে রাকিব সড়কে উঠে পড়ে। এ সময় একটি মোটরসাইল দ্রুতগতিতে ওই এলাকা অতিক্রমকালে হঠাৎ সামনে এসে যায় রাকিব। মোটরসাইকেলটি তাকে চাপা দেয়। গুরুতর আহত রাকিবকে উদ্ধার করে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মারা যায় সে। চোখের সামনে ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যুতে নির্বাক হয়ে পড়েন মা রহিমা।

রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেওয়ান জগলুল হাসান বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এখনো এ ব্যাপারে কোনো অভিযোগ আসেনি। শিশুটির মা রহিমা এখনো স্বাভাবিক হননি। তাঁর সঙ্গে  কথা বলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন