বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ অবস্থায় বেলা ১১টায় জাহেদ ইকবাল চৌধুরী (ঘোড়া প্রতীক) ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। জাহেদ খৈয়াছড়া ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান। তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন। বিদ্রোহী হওয়ায় তাঁকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহফুজুল হক।

জাহেদ বলেন, ভোটকেন্দ্র দখল করা হয়েছে। ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাধা দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় তিনি ভোট বর্জন করেছেন।

একই অভিযোগে ইছাখালী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মোস্তফা (আনারস প্রতীক) ভোট বর্জন করেন। তিনি বলেন, ‘ভোট শুরু হওয়ার পর থেকেই সব কেন্দ্র দখল করে নিয়েছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা। আমার নিজের ভোটও দিতে পারিনি।’ এ ইউপিতে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের নুরুল মোস্তফা। নুরুল ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান।

এ ছাড়া মিরসরাই সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ভোট বর্জন করেছেন ইউপি সদস্য প্রার্থী (ফুটবল প্রতীক) নাছির করিম। তিনি বলেন, ভোটকেন্দ্রে ঢুকে জোর করে নির্দিষ্ট প্রতীকে ভোট দিচ্ছেন বহিরাগত ব্যক্তিরা।

প্রার্থীদের এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ফারুখ হোসেন বলেন, কয়েকটি ভোটকেন্দ্রে ছোটখাটো অনিয়মের কথা শুনেছেন। তবে সব মিলিয়ে ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন