বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ব্যক্তির বড় ভাই আবদুল লতিফ হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, পুকুর পাড়ে একটি খড়ের গাদা তৈরি করার সময় তাঁদের বাড়িরই কেতাব আলী ও তাঁর ছেলে লিটন (২৮), শিপন (২৬), সজল (২৪), শাওন (১৮), ছাব্বির (১৬) ও রাব্বি (১৪) দা ও ছোরা নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম আর শওকত আনোয়ার ইসলাম জানান, জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কেতাব আলী ও তাঁর ছেলে লিটনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালীর মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন