থানায় দেওয়া লিখিত অভিযোগ থেকে ও মার্কেটের একাধিক ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মার্কেটের মালিক রঞ্জিত ও সঞ্জয়ের ছোট ভাই মিলন আহম্মেদ ওরফে বিজয় সাও ২০১৩ সালে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলিম হন। এর পর থেকে তিনি পৈতৃক সম্পত্তির ভাগ চেয়ে আসছেন। মার্কেটের ওই স্বর্ণালংকারের দোকানটি তাঁর বলে দাবি করে আজ দুপুরে শ্বশুরবাড়ির লোকজন নিয়ে ওই দোকানে হামলা চালান মিলন।

এ সময় তাঁর স্ত্রী শিমু সওদাগরসহ শ্বশুরবাড়ির আত্মীয় বিদেশি সওদাগর, লাভলু সওদাগর ও মুক্তি সওদাগর লাঠি, লোহার রড ও দেশি অস্ত্র নিয়ে মকবুল ও রেজাউলকে বেধড়ক পেটান।

একপর্যায়ে তাঁরা দোকানের আলমারিতে থাকা ১৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা মূল্যের ২০ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার ও ৬০ হাজার টাকার ৫০ ভরি ওজনের রুপার অলংকার লুট করেন। মকবুল ও রেজাউলের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যান। এরপর ওই দুজনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মির্জাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, হামলার বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছেন। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন