বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মাহাদি এখনো নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন। আজ শুক্রবারও তিনি বিছানায় বসে মুখে খাওয়াদাওয়া করেছেন। আইসিইউতে এ ধরনের রোগীদের কনসাসনেস স্কেল পরিমাপ করে দেখা হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কর্তব্যরত এক চিকিৎসক জানান, কনসাসনেস স্কেলের স্বাভাবিক পরিমাপ ১৫। তাঁর ১৪ রয়েছে। খুব ভালো উন্নতি হচ্ছে তাঁর। জ্বর নেই।

মাহাদিকে দেখে এসে চমেক চতুর্থ বর্ষের ছাত্র অভিজিৎ দাশ বলেন, মাহাদির অবস্থা আগের চেয়ে ভালো। দ্রুত উন্নতি হচ্ছে তাঁর।

গত ২৯ অক্টোবর শুক্রবার চমেক ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এ সময় দুই ছাত্র আহত হন। তাঁরা সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী। এ ঘটনার জের ধরে পরের দিন শনিবার চমেক ক্যাম্পাসের সামনের রাস্তায় মাহাদির ওপর আক্রমণ হয়।

এরপর ওই দিনই তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়। অস্ত্রোপচারের সময় তাঁর মাথার খুলির হাড়ের একটি অংশ খুলে পেটের চামড়ার নিচে রেখে দেওয়া হয়। এরপর থেকে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন মাহাদি। মারামারি ও হামলার ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন