default-image

তরুণ এক দম্পতি তাঁদের দুই শিশুসন্তানসহ গাড়ি থেকে নামলেন। সবার মুখে রং-বেরঙের মাস্ক। তাঁদের দিকে হাসিমুখে এগিয়ে গেলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দিলারা রহমান। প্রত্যেকের হাতে তুলে দিলেন লাল গোলাপ। বললেন, ‘পরিবারের সবাই মাস্ক পরায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিনন্দন।’

দামুড়হুদার ইউএনও দিলারা রহমানের হাত থেকে আকস্মিক ফুল পাওয়ার পর ওই পরিবারটির চোখেমুখে দেখা দেয় অন্য রকম মুগ্ধতা। এটি আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় দর্শনা বাসস্ট্যান্ড এলাকার ঘটনা।

শীত মৌসুমে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় মাস্ক পরা ও স্বাস্থ্যবিধি মানা নিশ্চিত করতে আজ দর্শনা বাসস্ট্যান্ডসহ পৌর এলাকায় প্রচারাভিযান চালায় দামুড়হুদা উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নাজির ওমর ফারুক ও দর্শনা থানা-পুলিশ প্রচারাভিযানে সহযোগিতা করে।

বিজ্ঞাপন
শতভাগ মানুষকে মাস্ক পরতে উৎসাহিত করতে উপজেলা প্রশাসন প্রচারাভিযানে নেমেছে। লক্ষ্য পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অভিযান চলবে।
দিলারা রহমান, দামুড়হুদার ইউএনও

প্রচারাভিযান চলাকালে ইউএনও নিজ হাতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও যানবাহনগুলোতে ‘মাস্ক নেই, সেবা নেই’ লেখা স্টিকার লাগিয়ে দেন। এ সময় মাস্ক পরে চলাচলকারী অন্তত ১০০ জন নারী-পুরুষ ও শিশুর হাতে তুলে দেন লাল গোলাপ। অপর দিকে যাঁরা অবহেলা করে মাস্ক পরেননি, এমন ২৩ জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

ইউএনও দিলারা রহমান জানান, শীত মৌসুমে কোভিড-১৯ সংক্রমণের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা রয়েছে। এর হাত থেকে রক্ষায় বিশেষজ্ঞরা মাস্ক পরার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন। শতভাগ মানুষকে মাস্ক পরতে উৎসাহিত করতে উপজেলা প্রশাসন প্রচারাভিযানে নেমেছে। লক্ষ্য পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অভিযান চলবে।

মন্তব্য করুন