মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ইঁদুরের বাচ্চাসহ উদ্ধার করা ৮ টন খাওয়ার অনুপোযোগী পচা খেজুর। আজ বুধবার দুপুরে উপজেলার মুক্তারপুরের এলাইড কোল্ড স্টোরেজ
মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ইঁদুরের বাচ্চাসহ উদ্ধার করা ৮ টন খাওয়ার অনুপোযোগী পচা খেজুর। আজ বুধবার দুপুরে উপজেলার মুক্তারপুরের এলাইড কোল্ড স্টোরেজপ্রথম আলো

মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার অভিযান চালিয়ে ইঁদুরের বাচ্চাসহ প্রায় ৮ হাজার কেজি (৮ টন) খাওয়ার অনুপযোগী পচা খেজুর জব্দ করা হয়েছে। আজ বুধবার দুপুরে উপজেলার মুক্তারপুরের এলাইড কোল্ড স্টোরেজ লিমিটেডে অভিযান চালিয়ে খেজুরগুলো জব্দ করা হয়। পচা খেজুর রাখার দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই প্রতিষ্ঠানকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। আদালত পরিচালনা করেন মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ আশিক কবির।

মাহমুদ আশিক কবির প্রথম আলোকে বলেন, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনিরুজ্জামান তালুকদারের নির্দেশে খাবারের যথাযথ মান বজায় রাখতে নিয়মিত অভিযান চালানো হচ্ছে। এর ধারাবাহিকতায় আজ দুপুর ১২টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত মুক্তারপুরের হিমাগারগুলোতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় এলাইড কোল্ড স্টোরেজ লিমিটেডে থেকে ৮ হাজার কেজি মানহীন খেজুর জব্দ করা হয়েছে। খেজুরের প্যাকেটগুলো খোলা অবস্থায় পড়ে ছিল। সঠিক তাপমাত্রায় খেজুরগুলো সংরক্ষণ করা হয়নি। এতে খেজুরগুলোতে পচন ধরেছে। অনেকগুলো প্যাকেটের খেজুর ইঁদুর খেয়েছে। আবার কয়েকটি প্যাকেটে ইঁদুর বাচ্চাও ফুটিয়েছে। এসব খেজুর একেবারেই খাওয়ার অনুপযোগী এবং স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। জব্দ করা খেজুর পঞ্চসার ইউনিয়নের এয়ার ক্লিনিকের পাশে ধ্বংস করা হয়।

default-image

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ আশিক বলেন, এ সময় নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ অনুসারে এলাইড কোল্ড স্টোরেজের মালিক সিরাজুল ইসলামকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। সেই সঙ্গে ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ না করার জন্য সাবধান করা হয়।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন