আজ বেলা ১১টার দিকে প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা। এতে সড়কে প্রায় আধঘণ্টার জন্য যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দুপুর পৌনে ১২টার দিকে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের দিকে যেতে চান বিক্ষোভকারীরা। পরে থানা, সদর ফাঁড়ি ও ডিবি পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বিক্ষোভকারীদের বিচারের আশ্বাস দিলে তাঁরা সড়ক থেকে সরে যান।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মিরকাদিমের পরিবেশ এতটা খারাপ কখনোই ছিল না। এর আগে প্রকাশ্যে এমন হত্যার ঘটনা ঘটেনি। এমন হত্যাকাণ্ড মেনে নেওয়া যায় না। ঝলক শিকদারের খুনিদের ফাঁসি দাবি করেন তাঁরা।

নিহত ঝলকের বাবা কাউন্সিলর মো. লিটন বলেন, ‘মিরকাদিম পৌর মেয়র আবদুস সালামের ছেলে মানিকের পরিকল্পনায় আমার ছেলে ঝলককে হত্যা করা হয়েছে। সাত দিন পার হয়ে যাচ্ছে এখনো মানিকসহ অনেকেই ধরাছোঁয়ার বাইরে। আমি মানিক, ঝিল্লুর, মমিন, সুমনসহ সবার ফাঁসি চাই। ছেলে হত্যার বিচার চাই।’

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে নিহত তরুণের বাবা ১৭ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার পর জিল্লুর রহমান, মো. সুমন, মো. নাছির, রফিকুল ইসলাম, শফিকুল ইসলামসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলাটির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাজীব খান আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ঝলক হত্যার ঘটনায় ইতিমধ্যে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে কাজ করছে পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন