বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কুমিল্লা আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) জহিরুল ইসলাম সেলিম বলেন, মামলার আবেদনের ওপর শুনানি হয়েছে। আদালতের বিচারক মাজহারুল ইসলাম পরে আদেশ দেবেন। এই ক্ষেত্রে মামলা চলতে পারে অথবা তদন্তের জন্য দিতে পারেন আদালত। মেরিট না থাকলে খারিজও হতে পারে।

মামলার বাদী আতিকুল ইসলাম কুমিল্লা শহর বিএনপির সাবেক সভাপতি। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের এই নেতা জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন। এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, ১ ডিসেম্বর জনৈক নাহিদ হেলাল মুরাদ হাসানের সাক্ষাত্কার নেন এবং তা তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে প্রচার করেন। ওই দিন বাদী কুমিল্লা আদালত সড়কের নিজ চেম্বারে ওই সাক্ষাত্কার আরও পাঁচজন আইনজীবীসহ শোনেন-দেখেন। এ ঘটনায় বাদী মর্মাহত হয়ে রোববার মামলা করেন। দণ্ডবিধির ১৫৩(ক), ৫০৫(ক) ও ৫০৯ ধারায় এই মামলার আবেদন করা হয়।

বাদীর অভিযোগ, ওই অনুষ্ঠানে উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নাতনি জাইমা রহমান সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন মুরাদ হাসান। এটি শুধু জাইমার জন্য সম্মানহানিকর নয়, নারীসমাজের জন্যও অপমানজনক। তাই জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের পক্ষ থেকে মামলাটি করা হয়।

বাদী মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আদালত মামলার এজাহারের শুনানি নিয়েছেন। আদেশ দেবেন পরে। এই মামলায় পাঁচজনকে সাক্ষী করা হয়েছে। এখন আদেশের অপেক্ষায় আছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন