বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

১৪ এপিবিএনের অধিনায়ক ও পুলিশ সুপার নাঈমুল হক বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় এই দুই রোহিঙ্গা জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দুজনকে রাতেই উখিয়া থানার পুলিশে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে গতকাল বেলা ১১টার দিকে কুতুপালং আশ্রয়শিবিরে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী সেলিম উল্লাহকে।

পুলিশ ও স্থানীয় রোহিঙ্গারা জানান, গত বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) কার্যালয়ে ঢোকার সময় বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হন মুহিবুল্লাহ। তিনি ওই সংগঠনের চেয়ারম্যান ছিলেন। কার্যালয় থেকে ৩০ ফুট দূরেই তাঁর ঘর।

পরদিন বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে উখিয়া থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিবুল্লাহ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উখিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কার্তিক চন্দ্র পাল প্রথম আলোকে বলেন, গ্রেপ্তার আসামি সলিম উল্লাহকে আজ শনিবার বিকেলে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হবে। তাঁদের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন