বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় মোহাম্মদ ইলিয়াছের আদালতের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেককে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। মুহিবুল্লাহ হত্যার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। হত্যাকারীদের শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের ধরতে ক্যাম্পে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে উখিয়ার লম্বাশিয়া আশ্রয়শিবিরের ডি ব্লকের আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ) সংগঠনের কার্যালয়ে বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হন মুহিবুল্লাহ (৪৮)। তিনি ওই সংগঠনের চেয়ারম্যান ছিলেন। পরের দিন ৩০ সেপ্টেম্বর মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় হত্যা মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উখিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কার্ত্তিক চন্দ্র পাল বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত অন্য সন্ত্রাসীদের ধরতে ক্যাম্পে দিনরাত অভিযান চালানো হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন