বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আল আমিন উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের গকুল নগর গ্রামের শহীদ মিয়ার ছেলে। আল আমিনের ভাষ্য অনুযায়ী, প্রতিদিনের মতো সোমবার সকাল আনুমানিক নয়টায় দোকান খুলতে যান তিনি। দোকান খোলার সময় পাশে রাখা মুঠোফোন ও টাকা ভর্তি ব্যাগটি চোখের পলকে কে বা কারা নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। আল আমিন বলেন, ‘টাকা ও মোবাইল না পেলে আমাকে পথে বসতে হবে। ধারদেনা করে এ ব্যবসা দাঁড় করিয়েছি।’

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাদেকুর রহমান বলেন, পুলিশ অভিযোগ পাওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চালিয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে। টাকা ও মুঠোফোন উদ্ধারের চেষ্টাও চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন