default-image

সারা দেশে সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তি কার্যক্রমের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে গতকাল সোমবার। লটারিপদ্ধতিতে অনলাইনে এই ফলাফল ঘোষণা হয়। ময়মনসিংহের বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের তালিকায় তিনজন ছেলের নাম দেখা গেছে।

মেয়েদের বিদ্যালয়ের ভর্তি তালিকায় ছেলেদের নাম দেখে অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তাঁরা এসব আসন স্বচ্ছতার মাধ্যমে পূরণ করতে বলেন। এদিকে ফলাফল নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকে নানা প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ১৮৭৩ সালে মেয়েদের শিক্ষা প্রসারের জন্য ময়মনসিংহ শহরে বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় স্থাপিত হয়। আগে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে বিদ্যালয়ে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালিত হতো। পরে তা বদলে লটারিপদ্ধতি প্রচলন করা হয়।

এবারের লটারি পদ্ধতিতে বিদ্যালয়ে দুই শিফটে (পালায়) চতুর্থ শ্রেণিতে ১৭৭ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। তবে এই তালিকায় তিনজন ছেলের নাম রয়েছে। তারা হলো মো. জোবায়েরুল হাসান খান, ফায়াজ জাহাঙ্গীর ইশমাম ও ফারাবী ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

তাহসান রহমান নামের এক অভিভাবক বলেন, লটারিপদ্ধতিতে এ রকম নানা ভুলত্রুটি হয়। মেধাবীদের মূল্যায়ন করা হয় না। আবুল মনসুর ও আলী ইউসুফ নামের দুই সাংস্কৃতিক কর্মী বিষয়টি পুনর্মূল্যায়ন করে সুষ্ঠুভাবে ফলাফল প্রকাশের দাবি জানান।

বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসিমা আক্তার বলেন, এ বছর ভর্তিপ্রক্রিয়া সফটওয়্যারের মাধ্যমে কেন্দ্রীয়ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এখানে তাঁদের ভূমিকা নেই। হয়তো কোনো অভিভাবক ভর্তির আবেদনের সময় তার সন্তানের জন্য নিয়ম অনুযায়ী পাঁচটি বিদ্যালয় বাছাই করতে গিয়ে এ ধরনের ভুল করে থাকতে পারেন। যার জন্য ছেলেদের নাম বালিকা বিদ্যালয়ে চলে আসতে পারে। এই তিন শিক্ষার্থীর ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, তা পরে জানানো হবে।

মন্তব্য করুন