বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, আজ সকালে ইমাজ একটি মোটরসাইকেল চালিয়ে আকিজ জুট মিলসংলগ্ন রেলক্রসিং পার হচ্ছিল। রেললাইনে ওঠার পর তার মোটরসাইকেলের সামনের চাকা আটকে যায়। ওই সময় খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী রকেট মেইল ট্রেনও চলে আসে। এদিকে ইমাজ মোটরসাইকেলের ওপর বসেই সেখান থেকে মোটরসাইকেল ছাড়িয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় রকেট মেইল এসে ইমাজের মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেলটি দুমড়েমুচড়ে যায় এবং ইমাজ রহমান গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শাহিনুর রহমান জানান, সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে ইমাজ রহমানকে মৃত অবস্থায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়।

নিহতের চাচা মহিদুল ইসলাম বলেন, আজ সকালে ইমাজ তার বাবাকে মোটরসাইকেলে পায়রাহাট আবদুল হামিদ টি এম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পৌঁছে দেয়। সেখান থেকে আকিজ সিটি সেন্টারে যাওয়ার পথে তালতলা এলাকায় অরক্ষিত রেলক্রসিং পার হওয়ার সময় দুর্ঘটনা ঘটে।

নওয়াপাড়া রেলস্টেশন মাস্টার বুলবুল আহমেদ বলেন, ‘যে রেলক্রসিংয়ের কথা বলা হচ্ছে, সেটি অবৈধ। তবে সেখানে দুর্ঘটনার কোনো ঘটনা আমার জানা নেই। গার্ড বা ট্রেনের চালক কেউ–ই আমাকে দুর্ঘটনার কোনো তথ্য দেননি। বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে লোক পাঠিয়েও কিছু পাইনি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন