default-image

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগামীকাল শনিবার সকালে সাতক্ষীরার ঈশ্বরীপুরে যশোরেশ্বরী কালীমন্দিরে আসার কথা রয়েছে। এ জন্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সাতক্ষীরায় আগমন উপলক্ষে এক নিরাপত্তাবিষয়ক ব্রিফিংয়ে খুলনা রেঞ্জের উপমহা পুলিশ পরিদর্শক (ডিআইজি) খ. মহিদ উদ্দীন এ কথা বলেছেন।

আজ শুক্রবার বিকেল চারটার দিকে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা সদরে সরকারি মোহসীন কলেজ মাঠে এই নিরাপত্তাবিষয়ক ব্রিফিং হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত উপমহা পুলিশ পরিদর্শক (এডিআইজি) নজরুল ইসলাম।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগামীকাল শনিবার সকালে সাতক্ষীরার ঈশ্বরীপুরে যশোরেশ্বরী কালীমন্দিরে আসার কথা রয়েছে।

ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনে সাতক্ষীরার ঈশ্বরীপুরে পোশাকধারী ১ হাজার ৩০০ বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ সদস্য দায়িত্বে থাকবেন। এ ছাড়া সাদাপোশাকে আরও ২০০ পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। বিভিন্ন এলাকায় লাগানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা। শুধু পুলিশের থাকবে তিন স্তরের নিরাপত্তাবলয়। এ ছাড়া র‌্যাব, স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ), প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট (পিজিআর) ছাড়াও থাকবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ভারতীয় স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ (এসপিজি) সদস্যরা। যশোরেশ্বরী মন্দির এলাকা থেকে পাঁচ বর্গকিলোমিটার এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে। ইতিমধ্যে ওই সব এলাকায় কার বাড়িতে কয়জন মানুষ, তাঁদের বয়স ও পরিচয় নেওয়া হয়েছে। শনিবার সকাল থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসা ও না যাওয়া পর্যন্ত ওই বাড়ির মানুষ বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া যেন বাইরে বের না হন, সে জন্য তাঁদের সতর্ক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
সার্বিকভাবে একজন ভিভিআইপির জন্য যে ধরনের নিরাপত্তার প্রয়োজন, সব নেওয়া হয়েছে। আপনারা সবাই সর্বোচ্চ সতর্ক থাকবেন। শুধু প্রতিবেশী দেশ নয় ভারত, মুক্তিযুদ্ধে তারা সহযোগিতা করেছিল—এ কথা স্মরণে রাখতে হবে।
মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, পুলিশ সুপার, সাতক্ষীরা

পুলিশ সুপার বলেন, ‘সার্বিকভাবে একজন ভিভিআইপির জন্য যে ধরনের নিরাপত্তার প্রয়োজন, সব নেওয়া হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে পুলিশ বাহিনীর গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রয়েছে। সেই পুলিশ বাহিনীর ওপর স্বাধীনতার মাসে হামলা করেছে মৌলবাদী চক্র। আপনারা সবাই সর্বোচ্চ সতর্ক থাকবেন। শুধু প্রতিবেশী দেশ নয় ভারত, মুক্তিযুদ্ধে তারা সহযোগিতা করেছিল—এ কথা স্মরণে রাখতে হবে।’

এদিকে নরেন্দ্র মোদির আগমন উপলক্ষে আনন্দে উদ্বেল সাতক্ষীরাসহ শ্যামনগরের মানুষ। দারুণ সাজে সাজানো হয়েছে ঈশ্বরীপুর। যশোরেশ্বরী মন্দির সাজানো হয়েছে অনবদ্য সাজে। আশপাশের সড়ক থেকে হেলিপ্যাড পর্যন্ত মেজে-ঘষে করা হয়েছে নান্দনিক। ঈশ্বরীপুর দেখে নরেন্দ্র মোদির যাতে ভালো লাগা তৈরি হয়, তার সব ধরনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তাঁকে বরণ করতে অধীর অপেক্ষা করছে শ্যামনগর তথা সাতক্ষীরাবাসী।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন