default-image

ময়মনসিংহে বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশার চালকসহ সাতজন আরোহীই নিহত হয়েছেন। শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহ-জামালপুর মহাসড়কের মুক্তাগাছা উপজেলার মানকোন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত লোকজনের মধ্যে একই পরিবারের তিনজন আছেন।

ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা রাজীব পরিবহন নামের একটি বাসের সঙ্গে ময়মনসিংহগামী একটি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়েমুচড়ে গিয়ে সাতজনের মৃত্যু হয়। পুলিশ সুপার আরও জানান, নিহত লোকজনের মধ্যে এক নারী ও একজন কিশোরী রয়েছেন। বাকি পাঁচজন পুরুষ। লাশ উদ্ধার করে মুক্তাগাছা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দুর্ঘটনার পর সড়কটি সাময়িক বন্ধ ছিল জানিয়ে তিনি বলেন, বাসটির চালককে আটক করেছে পুলিশ।

মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থলে চারজন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পথে অপর তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহত লোকজনের মধ্যে নূর ইসলাম (৩০), তাঁর স্ত্রী মোছা. তাসলিমা (২৬) এবং তাঁর শিশুকন্যা লিজা (১০) আছেন। তাঁদের বাড়ি টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার সোলাকুড়ি ইউনিয়নের নয়াকুড়ি গ্রামে। নিহত অপর চারজন হলেন সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক মো. আলাদুল (৩৮), যাত্রী মো. নজরুল (৩৫), নজর ইসলাম (৫৫) ও সাইদুল ইসলাম (৪৫)। তাঁরা মুক্তাগাছা উপজেলার ইসাখালী গ্রামের বাসিন্দা। সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করে মুক্তাগাছা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দুর্ঘটনার পর বাসচালক কামাল হোসেনকে (৫৩) আটক করেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0