বিজ্ঞাপন

জামালপুর পাউবোর গেজ রিডার (পানি পরিমাপক) আবদুল মান্নান প্রথম আলোকে বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ১৬ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে নদীতীরবর্তী নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। অনেক অঞ্চলে পানি ঢুকছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, গত দফার বন্যায় গ্রামে বিভিন্ন বাঁধ ও সড়ক ভেঙে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছিল। সেই সব ভাঙা অংশ মেরামত হয়নি। এ কারণে নদীর পানি বেড়ে ওইসব ভাঙা স্থান দিয়ে গ্রামে পানি প্রবেশ করছে। এতে গ্রামের ফসলি জমি ফের প্লাবিত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে লোকজন পুনরায় পানিবন্দী হয়ে পড়বেন।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. মোক্তাদির প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন থেকে পানি বাড়ছিল। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পানি বিভিন্ন এলাকায় ঢুকতে শুরু করেছে। নদীতীরবর্তী এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। দ্রুতই পানি বাড়ছে। এভাবে পানি বাড়তে থাকতে ফের বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন