যশোর শহরের ব্যস্ততম হজরত গরীব শাহ সড়ক বন্ধ করে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশ করেছে যশোর জেলা যুবলীগ।
বেলা  তিনটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে এ সমাবেশ। এতে করে শহরের অন্য সড়কগুলোতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। চরম ভোগান্তির শিকার হন শহরবাসী। আজ বুধবার বিকালে শহরের বকুলতলার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের সামনে
যশোর শহরের ব্যস্ততম হজরত গরীব শাহ সড়ক বন্ধ করে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশ করেছে যশোর জেলা যুবলীগ। বেলা তিনটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে এ সমাবেশ। এতে করে শহরের অন্য সড়কগুলোতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। চরম ভোগান্তির শিকার হন শহরবাসী। আজ বুধবার বিকালে শহরের বকুলতলার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের সামনে প্রথম আলো

যশোর শহরের প্রাণকেন্দ্র বঙ্গবন্ধু ম্যুরালের পাশে ব্যস্ততম হজরত গরীব শাহ সড়ক আটকে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশ করা হয়েছে। সড়কদ্বীপে মঞ্চ নির্মাণ করে সমাবেশ করায় পথচারীদের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে। এদিকে এ সমাবেশে করোনা পরিস্থিতিতেও ছিল না কোনো সামাজিক দূরত্বের বালাই। সমাবেশ মঞ্চের সামনে শত শত নেতা-কর্মী ও সমর্থককে গায়ে গা ঘেঁষে অংশ নিতে দেখা গেছে। আজ বুধবার বিকেলে যশোর জেলা যুবলীগের একাংশ আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন যশোর-৩ আসনের সাংসদ কাজী নাবিল আহমেদ।

সমাবেশকালে সড়কে মানুষের ভোগান্তির বিষয়ে জানতে চাইলে যশোর জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুনীর হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। মানুষের ততটা ভোগান্তি হয়নি বলেও তিনি দাবি করেন।

করোনা পরিস্থিতিতে গায়ে গা ঘেঁষে নেতা-কর্মী ও সমর্থককে জড়ো করার বিষয়ে তিনি দাবি করেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনেই অনুষ্ঠান করা হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় ছিল। সমাবেশে আগত সবাইকে মাস্ক পরার জন্য আহ্বান জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

বেলা তিনটা থেকে সমাবেশ অনুষ্ঠান শুরু হয়। সমাবেশস্থলে দেখা গেছে, জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে ব্যস্ততম সড়কের ওপর মঞ্চ নির্মাণ করে অন্তত এক হাজার চেয়ার পাতা রয়েছে। এ সময় শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল সমাবেশস্থলে যোগ দিতে দেখা যায়। মিছিলের অনেক মানুষের মুখে মাস্ক ছিল না। সামাজিক দূরত্বেরও কোনো বালাই ছিল না।

রাস্তা আটকে সমাবেশ করার কারণে দড়াটানা মোড় থেকে পালবাড়ির দিকে রিকশা নিয়ে মানুষ সরাসরি যেতে পারেনি। তাদের উকিল বার মোড় ঘুরে গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়েছে। এতে পথচারীদের অনেক ভোগান্তির শিকার হতে হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুনীর হোসেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নুরজাহান ইসলাম। বক্তব্য দেন সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন শহর যুবলীগের আহ্বায়ক মাহমুদুল হাসান।

মন্তব্য পড়ুন 0