বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০২ সালে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার হাবুল্লা গ্রামের আবদুর রশিদের মেয়ে তারা বেগমের সঙ্গে একই উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে মনিরুল ইসলামের বিয়ে হয়। তাঁদের এক ছেলে ও এক মেয়ে। বিয়ের পর থেকে মনিরুল তাঁর স্ত্রীকে মারধর করতেন। ২০১২ সালের ৪ অক্টোবর তারা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। এরপর তাঁর লাশটি বাড়ির পেছনে বাগানে মাটিচাপা দেওয়া হয়। কয়েক দিন পর নিহত তারার মা তাঁর মেয়ের সন্ধান করতে গিয়ে বাগানে লাশের সন্ধান পান। ওই সময় খবর দিলে পুলিশ তারা বেগমের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে।

২০১২ সালের ৪ অক্টোবর তারা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় নিহত তারার মা সবুরা খাতুন বাদী হয়ে বাঘারপাড়া থানায় মনিরুলকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। ২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি মনিরুলকে অভিযুক্ত করে পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) এম ইদ্রিস আলী বলেন, স্ত্রী হত্যা মামলার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় স্বামী মনিরুলের মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন বিচারক। আসামি মনিরুল কারাগারে আটক আছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন