যশোরে স্বামীকে শ্বাসরোধে হত্যা, গৃহবধূ গ্রেপ্তার

হত্যা
প্রতীকী ছবি

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী লাল্টু মণ্ডলকে (২৫) বালিশচাপা ও গলায় রশি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তাঁর স্ত্রী সুরাইয়া খাতুনের (১৯) বিরুদ্ধে। গতকাল রোববার রাতে উপজেলার দক্ষিণ শ্রীরামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় করা মামলায় গৃহবধূ সুরাইয়া খাতুনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত লাল্টু মণ্ডল বাঘারপাড়া উপজেলার দক্ষিণ শ্রীরামপুর গ্রামের ফসিয়ার মণ্ডলের ছেলে। তিনি যশোর ক্যান্টনমেন্টে সিভিল বিভাগে চুক্তিভিত্তিক ব্যাটম্যান পদে কর্মরত ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল রোববার দিবাগত রাত দুইটার দিকে সুরাইয়া খাতুন তাঁর শাশুড়িকে ডেকে জানান লাল্টু গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বিষয়টি জানার পর লাল্টুর বড় ভাই মনিরুজ্জামান মিন্টু ও তাঁর মা শোবার ঘরে গিয়ে দেখেন লাল্টু মেঝেতে পড়ে আছেন। এরপর লাল্টুকে উদ্ধার করে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নেওয়া হলে তাঁকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

পুলিশ আরও জানায়, লাল্টু ২২ মার্চ ছুটিতে যশোর ক্যান্টনমেন্ট থেকে বাড়ি আসেন। সম্প্রতি গয়নাসংক্রান্ত বিষয়ে স্ত্রীর সঙ্গে তাঁর ঝগড়া হয়। সেই সময় স্ত্রীকে মারধর করেন লাল্টু। এর জের ধরে গতকাল দিবাগত রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় লাল্টুকে তাঁর স্ত্রী বালিশচাপা ও গলায় রশি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। আজ সোমবার সকালে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ উদ্দীন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুরাইয়া খাতুন তাঁর স্বামীকে বালিশচাপা ও গলায় রশি দিয়ে শ্বাসরোধ হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির পরিবার বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা করে। অভিযুক্ত সুরাইয়াকে গ্রেপ্তার করে আজ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।