বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ সময় উপাচার্য বলেন, ‘সেশনজট দূর ও দেশের দক্ষ জনশক্তি জোগানের জন্য কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্নাতকোত্তর শ্রেণির পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আগামী অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে স্নাতক শ্রেণির শেষ বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার সব প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। পরীক্ষার সময় যেসব শিক্ষার্থীর বাইরে থাকার সামর্থ্য নেই, কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার শর্তে তাদের আবাসিক হলে থাকার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। আমাদের লক্ষ্য, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সব বর্ষের পরীক্ষা শেষ করা। তবে কোনো শিক্ষার্থী যেন ঝরে না পড়ে, এ জন্য অনলাইন ও সশরীর উপস্থিতিতে শিক্ষাব্যবস্থা চালু রাখা হবে।’

শহীদ মসিয়ূর রহমান হল ও শেখ হাসিনা ছাত্রী হল সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরীক্ষার পর হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে একজন শিক্ষার্থীকে একটি কক্ষে রাখা হয়েছে। হলের মধ্যেই শিক্ষার্থীদের খাওয়াদাওয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পরীক্ষা চলাকালে হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের এক দিন পরপর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার সময় হলে থাকার জন্য ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তর থেকে দরখাস্ত আহ্বান করা হয়। তাদের সংখ্যা পর্যালোচনা করে পরবর্তী বর্ষের শিক্ষার্থীদের বিষয়ে দ্রুতই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এদিকে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় পরীক্ষা চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারের সব চিকিৎসক, নার্স ও মেডিকেল স্টাফদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন