default-image

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার লাউড়েরগড় সীমান্তের ওপারে ভারতের ঘোমাঘাট এলাকায় যাদুকাটা নদীতে বাংলাদেশি এক তরুণের লাশ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার দুপুরে ভাসমান অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করেছে ভারতের স্থানীয় পুলিশ।

ওই তরুণের নাম সাইদুর রহমান (২৫)। তিনি তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বড়গোপ টিলাগাঁও গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। সাইদুর যাদুকাটা নদীতে কয়লা ও বালু তোলা শ্রমিকের কাজ করতেন।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সুনামগঞ্জ-২৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তছলিম এহসান সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় বলেন, স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। সে দেশের পুলিশ নদী থেকে ওই তরুণের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে গেছে। কীভাবে তাঁর মৃত্যু হয়েছে, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন ছাড়া বলা যাবে না।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, প্রতিদিনের মতো সোমবার ভোরে যাদুকাটা নদীতে কাজে যান সাইদুর রহমান। নদীতে এলাকার আরও লোকজন কাজে ছিলেন। দুপুরের দিকে নদীতে থাকা অন্য শ্রমিকেরা খবর পান—ভারতের অভ্যন্তরে সীমান্তের প্রায় এক কিলোমিটার ভেতরে নলিকাটা থানার ঘোমাঘাট এলাকায় যাদুকাটা নদীতে বাংলাদেশি এক তরুণের লাশ ভেসে আছে। পরে তাঁরা নিশ্চিত হন তিনি সাইদুর রহমান।

সাইদুর রহমানের বাবা হাবিবুর রহমান স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, সাইদুর ভোরে কাজে গিয়েছিলেন। দুপুরে তাঁরা জানতে পারেন সাইদুর নাকি মারা গেছেন এবং তাঁর লাশ ভারতের ভেতরে আছে। কখন, কীভাবে তিনি মারা গেছেন, এটা কেউ তাঁকে জানায়নি।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন