বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের কাছে দেওয়া লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ১ মে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পদ্মাসন সিংহের উপস্থিতিতে যাদুকাটা নদের ঘাগটিয়া এলাকায় জব্দ করা ৫৫ হাজার ঘনফুট বালু প্রকাশ্য নিলামে বিক্রি করা হয়। নিলামে এই বালু কিনে নেন স্থানীয় বাসিন্দা রহিম উদ্দিনের ছেলে ডালিম মিয়া।

নিলামে উল্লেখিত স্থানের বাইরেও আশপাশে আরও প্রায় এক লাখ ঘনফুট বালু রাখা আছে। এই বালু স্থানীয় সাধারণ শ্রমিকেরা তুলে সরকারি জায়গায় রেখেছেন। এখন নিলামগ্রহীতারা তাঁদের সীমানার বাইরে থেকেও বালু নিয়ে অন্য স্থানে বিক্রি করে দিচ্ছেন। স্থানীয়ভাবে এরা প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তাদের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলতে পারেন না।

অভিযোগকারীদের একজন স্থানীয় বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আবদুল হক বলেন, নিলামের অজুহাতে এখন সাধারণ গরিব মানুষের তোলা বালুও জোর করে নেওয়া হচ্ছে। অথচ প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তাই এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

ইউএনও পদ্মাসন সিংহ বলেন, পাঁচটি প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে গঠিত টাস্কফোর্স যাদুকাটা নদে অবৈধভাবে বালু-পাথর উত্তোলন বন্ধে কাজ করছে। যারা নিলামে জব্দ করা বালু ক্রয় করেছে, এতে তাদের অধিকার আছে নির্ধারিত সীমানা থেকে বালু নেওয়ার। এর বাইরে থেকে বালু নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তবে যাঁরা অভিযোগ করেছেন, তাঁদের তো নদ থেকে বালু তোলার কোনো বৈধতা নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন