default-image

যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে আসা আরও ২৮ যাত্রীকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে যুক্তরাজ্যের হিথ্রো বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে আসা বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এ সময় বিমানে থাকা ৩৪ যাত্রীর মধ্যে ২৮ যাত্রী সিলেটে নামেন। বাকি ৬ যাত্রী নিয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিমানটি ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশে সিলেট ছেড়ে যায়।

ওই ২৮ যাত্রীর করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট, স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে প্রশাসনের সহযোগিতায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিমানবন্দর থেকে নির্দিষ্ট পরিবহনে করে ২৮ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। ওই ২৮ জনের মধ্যে ২৭ জনকে সিলেট নগরের নির্ধারিত হোটেলগুলোতে এবং একজনকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় নির্ধারিত খাদিম বিআরডিটিআইয়ে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের (স্ট্রেইন) সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ দেশটির সঙ্গে ভ্রমণনিষেধাজ্ঞা জারি করে। তবে বাংলাদেশ যুক্তরাজ্যে ভ্রমণনিষেধাজ্ঞা জারি করেনি।

বিজ্ঞাপন

সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ধরনের সংক্রমণ বৃদ্ধির পর বাংলাদেশ ভ্রমণনিষেধাজ্ঞা জারি না করলেও ১ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাজ্যফেরত সব যাত্রীকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়। এ জন্য সিলেটের জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কয়েকটি হোটেল নির্ধারণ করেছে। যুক্তরাজ্যফেরত যাত্রীদের জেলা প্রশাসনের নির্ধারিত হোটেলগুলোতে ১৪ দিন থাকার নির্দেশনা রয়েছে। হোটেলগুলোতে অবস্থানকালীন সব খরচ যুক্তরাজ্যফেরত যাত্রীরা বহন করবেন। এ ছাড়া নির্ধারিত হোটেলগুলোতে অবস্থান করতে না চাইলে সরকারি ব্যবস্থাপনায় সিলেট শহরতলির খাদিম বিআরডিটিআইয়ে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা রয়েছে।

সিলেট জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার (কোভিড-১৯ ও গণমাধ্যম শাখা) শামমা লাবিবা বলেন, সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কঠোর নিরাপত্তার মাধ্যমে যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের ২৭ জনকে নির্ধারিত হোটেলগুলোতে এবং ১ জনকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় নির্ধারিত বিআরডিটিআইয়ে পাঠানো হয়। হোটেলে অবস্থানকারী যাত্রীরা নিজ খরচে কোয়ারেন্টিন পালন করবেন। বিআরডিটিআইয়ে অবস্থানকারীদের সব খরচ সরকারিভাবে বহন করা হবে।

শামমা লাবিবা আরও বলেন, যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীরা ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন শেষে নিজ নিজ বাড়ি বা গন্তব্যে যেতে পারবেন। কোয়ারেন্টিন পালনকালে তাঁদের নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলতে হবে।

সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক হাফিজ আহমদ বলেন, বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্য থেকে আসা ২৮ যাত্রীকে প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গত সোমবার যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে ৪১ যাত্রী এসেছিলেন। তাঁদেরও প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়।

শামমা বলেন, সপ্তাহে সোম ও বৃহস্পতিবার একটি করে ফ্লাইট যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটের উদ্দেশে ছেড়ে আসা। অন্যদিকে সপ্তাহে একটি ফ্লাইট সিলেট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন