default-image

ছেলে হত্যার রায়ের দিন ধার্য থাকায় আজ বুধবার রোজা রেখেছিলেন রিফাত শরীফের মা ডেইজি আক্তার। তিনি হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। একই সঙ্গে রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

ডেইজি আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা যে আশা করেছি, আল্লাহ তা পূরণ করেছেন। দেশে এমন বিচার যদি আরও দু-একটা হতো, তাহলে আমার ছেলের এ পরিণতি হতো না। ছেলে হত্যার ন্যায়বিচারের জন্য রোজা রেখেছি। আমার আশা পূরণ হয়েছে।’

ছেলেহারা রিফাত শরীফের মা আরও বলেন, ‘ছেলেকে তো আর ফিরে পাব না। তবে যাঁরা দিনদুপুরে আমার ছেলেকে হত্যা করেছে, আদালত তাঁদের সঠিক শাস্তি দিয়েছেন। ন্যায়বিচার পেয়েছি। আমি এ রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানাই।’

ছেলেকে তো আর ফিরে পাব না। তবে যাঁরা দিনদুপুরে আমার ছেলেকে হত্যা করেছে, আদালত তাঁদের সঠিক শাস্তি দিয়েছেন।
ডেইজি আক্তার, রিফাত শরীফের মা
বিজ্ঞাপন

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় আজ ছয়জনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। জেলা ও দায়রা জজ মো. আসাদুজ্জমান মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির মধ্যে নয়জনের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় অনুপস্থিত একজনসহ চারজনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে রিফাতকে হত্যা করা হয়। এর পরদিন ১২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৫ থেকে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ। ওই বছর ১ সেপ্টেম্বর ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্ত ও অপ্রাপ্তবয়স্ক ভাগে ভাগ করে আদালতে প্রতিবেদন দেয় পুলিশ। এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন ও অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জন রয়েছে। এর মধ্যে ১৬ সেপ্টেম্বর দুই পক্ষের যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের রায়ের জন্য আজকের দিন ঠিক করেন।

মন্তব্য পড়ুন 0