default-image

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় যৌতুক না পেয়ে স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে তাঁর চুল কেটে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় হওয়া মামলায় গৃহবধূর শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করে গতকাল শুক্রবার কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ওই গৃহবধূর নাম চাঁদনি খাতুন (২৪)। তিনি পিয়নপাড়া গ্রামের রবিউল ইসলামের (৩৫) স্ত্রী। গ্রেপ্তার নারী হলেন রবিউলের মা জইলী বেগম (৫৫)।

বিজ্ঞাপন

এজাহার সূত্রে জানা যায়, প্রায় পাঁচ বছর আগে ইসরাফিল শেখের (৬০) ছেলে রবিউলের সঙ্গে একই গ্রামের এমরাজ শেখের মেয়ে চাঁদনির বিয়ে হয়। এরপর থেকেই রবিউল ও তাঁর মা–বাবা যৌতুক হিসেবে ২ লাখ টাকা দাবি করে আসছিলেন। চাঁদনির বাবা বিভিন্ন সময় ৫০ হাজার টাকা দেন। কিন্তু রবিউলের পরিবার আরও যৌতুকের জন্য নানাভাবে নির্যাতন করে আসছিল। এসব কারণে চাঁদনি বেশির ভাগ সময়ই বাবার বাড়িতে থাকতেন।

গত বুধবার চাঁদনি স্বামীর বাড়িতে যান। সেদিন বিকেলে যৌতুকের দাবিতে চাঁদনিকে মারধর করেন রবিউল। এতে ইসরাফিল ও জইলীও যোগ দেন। একপর্যায়ে ইসরাফিল ও জইলী চাঁদনিকে ধরে রাখেন এবং রবিউল চুল কেটে নেন। এরপর চাঁদনি বাবার বাড়ি চলে যান। পরদিন তিনি থানায় স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে আসামি করে মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য আজ শনিবার চেষ্টা করেও আসামিদের সঙ্গে যোগযোগ করা সম্ভব হয়নি।

জানতে চাইলে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন বলেন, পুলিশ অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার রাতেই মামলার ২ নম্বর আসামি জইলী বেগমকে গ্রেপ্তার করে। শুক্রবার তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0