default-image

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় যৌতুকের টাকা না পেয়ে আয়েশা আক্তার নামের এক গৃহবধূকে (৩২) পিটিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে। উপজেলার পশ্চিম ছাতারপাইয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ওই গৃহবধূর স্বামী আবুল হোসেনকে (৪০) গ্রেপ্তার করেছে। আজ বুধবার তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার আবুল হোসেনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন তাঁর স্ত্রী।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০০৫ সালে পশ্চিম ছাতারপাইয়া গ্রামের খোরশেদ আলমের মেয়ে আয়েশা আক্তারের সঙ্গে একই গ্রামের কুয়েতপ্রবাসী আবুল হোসেনের বিয়ে হয়। এ দম্পতির দুই মেয়ে ও এক ছেলে। গত ২৬ জানুয়ারি আবুল হোসেন গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এর পর থেকে আয়েশার ওপর নির্যাতন শুরু হয়।

বিজ্ঞাপন

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, গত কিছুদিন ধরে দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার কথা বলে আয়েশাকে বাপের বাড়ি থেকে আড়াই লাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে চাপ দেন আবুল হোসেন। টাকা না পাওয়ায় তিনি গত সোমবার সন্ধ্যায় আয়েশাকে মারধর করে গুরুতর জখম করেন এবং শ্বাস রোধ করে হত্যার চেষ্টা করেন। রাতে পরিবারের লোকজন আয়েশাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

গতকাল মঙ্গলবার আয়েশা বাদী হয়ে সেনবাগ থানায় একটি মামলা করেন। সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ আবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাতেন মৃধা বলেন, আয়েশার অভিযোগটি নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড করে অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন