বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রোববার রংপুর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করার বিষয়টি জানিয়েছে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে তারা বলেছে, রংপুর সদর উপজেলার পাগলাপীর এলাকার একজন গৃহবধূকে গুম করার অভিযোগে তাঁর মা গত ১৭ আগস্ট রংপুরের একটি আদালতে মামলা করেন। ওই মামলায় ওই গৃহবধূর স্বামীকে আসামি করা হয়। ওই দিনই আদালতের নির্দেশে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আদালতের নির্দেশ পেয়ে পিবিআই মামলাটি গ্রহণ করে তদন্তের দায়িত্ব দেয় উপপরিদর্শক (এসআই) শফিউল আলমকে। তদন্ত কর্মকর্তা তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ওই গৃহবধূ গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় আছেন বলে জানতে পারেন। এরপর গত শুক্রবার তাঁরা সেখানে অভিযান চালিয়ে একটি বাড়ি থেকে তাঁকে উদ্ধার করেন।

এরপর ওই গৃহবধূ পিবিআইয়ের কর্মকর্তাদের জানান, তাঁকে গুম করা হয়নি। এক ব্যক্তি তাঁকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নিয়ে আটকে রেখে ধর্ষণ করেছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে মিঠু মেল্লা (২৬) নামের এক ব্যক্তিকে ওই গৃহবধূর দায়ের করা মামলার আসামি করা হয়। গতকাল শনিবার রাতে পাবনার চাটমোহরের বাড়ি থেকে মিঠু মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রোববার রংপুরের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার সময় উদ্ধার হওয়া ওই গৃহবধূ বলেছেন, মুঠোফোন কথা বলার সূত্র ধরে মিঠু মোল্লার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক হয়। তিনি তাঁকে মিথ্যা প্রলোভন দিয়ে নিয়ে যান। এরপর পাবনা ও গাজীপুরে আটকে রেখে তাঁকে মিঠু একাধিকবার ধর্ষণ করেন। জবানবন্দি নেওয়ার পর গৃহবধূকে তাঁর মা ও স্বামীর হেফাজতে দিয়েছেন আদালত। আর মামলার আসামি মিঠু মোল্লাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন