বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মানুষের ভিড় এত বেশি যে সড়কের এক পাশ থেকে অন্য পাশে নবাবগঞ্জ বাজারে যাবেন, এমন কয়েকজন নারী সুপার মার্কেটের সামনে দিয়ে রাস্তা পারই হতে পারছেন না। এঁদের মধ্যে পুরুষেরা ফাঁকফোকর দিয়ে বেরিয়ে গেলেও নারীরা আটকে যাচ্ছেন। এমন দৃশ্য শহরের অনেক সড়কেই দেখা গেছে।

default-image

এ সময় একজন নারী ক্রেতা বললেন, ‘সবার মুখে মুখে করোনার গল্প, কিন্তু শহরে মানুষের ঢলাচল দেখে মনে হয় না দেশে এমন একটা মহামারি চলছে। আমরা মাস্ক পরেছি ঠিকই। কিন্তু অধিকাংশ মানুষের মুখে মাস্কটুকু দেখা যায় না। এই হচ্ছে আমাদের সচেতনতা।’

ঈদের কেনাকাটা করতে আসা আতাউর রহমান নামের এক শিক্ষক বলেন, ‘কী আর করব, ঈদ ঘিরে পরিবারে কিছু কেনাকাটা থাকে। তাই বের হওয়া। কিন্তু বাজারে এত মানুষের ভিড় তা বাড়ির বাইরে বের না হলে বোঝা যাবে না। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে ভালো। কিন্তু সেটিও অনেকে করেন না।’

রংপুরে করোনা সংক্রমণ রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। গত তিন দিনের ব্যবধানে জেলায় পাঁচ শতাধিক ব্যক্তি নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অথচ তিন দিন আগেও এখানে খুব কমসংখ্যক করোনা রোগী ছিল। একই সঙ্গে গত তিন দিনে এ জেলায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের।
রংপুরে সিভিল সার্জন হিরম্ব কুমার রায় বলছেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য প্রচারণাও চালানো হচ্ছে। কিন্তু মানুষজন খুব একটা মানছে না। এরপরও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এদিকে গত তিন দিনের ব্যবধানে রংপুরে করোনায় মৃত্যু ও করোনার সংক্রমণ বেড়েছে।’

‘জনতার রংপুর’ নামে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা করার জন্য শহরে মাইকিং করা হচ্ছে। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে মাস্ক না পরা মানুষের হাতে মাস্ক তুলে দেওয়া অব্যাহত রয়েছে।

এই সংগঠনের প্রধান চিকিৎসক সৈয়দ মামুনুর রহমান বলেন, ‘রংপুরে এখন প্রতিনিয়ত করোনা রোগী বাড়ছে, বাড়ছে মৃত্যুও। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন দফায় করোনা ইউনিটে শয্যা বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু এমন অবস্থা গত দুই সপ্তাহ আগেও ছিল না। তাই অসহায় করোনা রোগীদের পাশে থাকার জন্য আমরা বিনা মূল্যে অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ ওষুধ সরবরাহ করছি। একই সঙ্গে মানুষকে সচেতন হতে প্রচারণাও চলানো হচ্ছে।’

এ বিষয়ে রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, এবার কোরবানির হাটে অনেক কড়াকড়ি ছিল। শহরে ভ্রাম্যমাণ অদালতের একাধিক দল কাজ করছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জোর চেষ্টা চলানো হচ্ছে। ঈদের জামাতেও এসব নিয়ম মেনে চলার জন্য প্রতিটি মসজিদ কমিটিকে প্রচার চালানোর জন্য বলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন