default-image

রংপুরে সরকার–নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে পাঁচ টাকা কমে ৩০ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রির কার্যক্রম শুরু করেছে আলু আড়তদার ও ব্যবসায়ী সমিতি। আজ রোববার সকালে নগরের প্রধান ডাকঘরের সামনে কাছারি বাজার এলাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান। তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক পর্যায়ে কোল্ড স্টোরেজে থাকা ১০০ মেট্রিক টন আলু ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি শুরু করা হলো। পর্যায়ক্রমে নগরের চারটি স্থানে ট্রাকে করে এ আলু বিক্রি করা হবে। আলু আড়তদার ও ব্যবসায়ী সমিতির এ উদ্যোগের কারণে জনগণ উপকৃত হবেন বলে আশা করছি।’
জেলা প্রশাসক জানান, রংপুরে অতি দ্রুত টিসিবির মাধ্যমে আলু বিক্রির কার্যক্রম শুরু হবে। এ ছাড়া আলুর বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য প্রশাসন, ভোক্তা অধিকারসহ বিভিন্ন টিম বাজার মনিটর কাজ করছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম রব্বানী, কৃষি বিপণন রংপুর কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধা, আলু আড়তদার ও ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি তৈয়বুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ বণিক প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

রংপুর জেলা প্রশাসন ও কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের সহায়তায় শুরু হওয়া এ কার্যক্রমের আওতায় নগরের কাছারি বাজার, সাতমাথা, পায়রা চত্বর ও শাপলা চত্বর এলাকায় ট্রাকের মাধ্যমে আলু বিক্রি কার্যক্রম চলবে। প্রতিজনকে চার কেজি করে আলু দেওয়া হবে।
এদিকে সিটি বাজারে আজ গ্রানুলা আলু প্রতি কেজি ৪০ টাকা আর শিল আলু ৫০ টাকা করে বিক্রি হয়েছে।
আলু আড়তদার ও ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা হিমাগার থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে এসব আলু ক্রয় করে, তা প্রতি কেজি ৩০ টাকায় বিক্রি করছেন। আলু আড়তদার ও ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি তৈয়বুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0