বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ কর্মকর্তা শাহ আলী প্রথম আলোকে বলেন, ১৭ ডিসেম্বর রাত ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী প্রশাসনিক ভবন-১-এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, রেজিস্ট্রার, সব বিভাগের চেয়ারম্যান ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার উপস্থিতিতে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে শীতকালীন ছুটি বাতিলের ব্যাপারে প্রস্তাব উত্থাপন করেন সভার সভাপতি রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়েরে উপাচার্য শাহ আজম। উপস্থিত সদস্যরা এ ব্যাপারে একমত পোষণ করেন।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দীর্ঘ বিরতি একদিকে যেমন সেশনজটের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিয়েছে, তেমনি শিক্ষার্থীদের মনোজগতেও বিরূপ প্রভাব ফেলেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছুটি বাতিলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।

সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শাহ আজম তাঁর বক্তব্যে বলেন, কোভিড মহামারির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল প্রায় ১৯ মাস। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অপ্রীতিকর ঘটনায় আরও প্রায় আড়াই মাস শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছে। পড়ালেখায় এই অনাকাঙ্ক্ষিত দীর্ঘ বিরতি একদিকে যেমন সেশনজটের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিয়েছে, তেমনি শিক্ষার্থীদের মনোজগতেও বিরূপ প্রভাব ফেলেছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয় যেসব পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে, তা বাস্তবায়ন করতে শিক্ষা কার্যক্রম নিরবচ্ছিন্ন করা প্রয়োজন।

শাহ আলী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন। আগামীকাল মঙ্গলবার একযোগে বিভিন্ন বিভাগের ফাইনাল পরীক্ষা শুরু হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন