বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জুলেহা বেগমের মেয়ে জিকু আকতার অন্তঃসত্ত্বা। আজ রাত আটটার দিকে তাঁর প্রসববেদনা ওঠে। পরিবারের সদস্যরা রাঙ্গুনিয়া থেকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তাঁকে নিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাচ্ছিলেন। পথে রাউজান উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের পিংক সিটি আবাসন প্রকল্প এলাকায় দ্রুতগতির একটি পিকআপ তাঁদের অটোরিকশাটিকে ধাক্কা দেয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়েমুচড়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই জিকু আকতারের খালা সাজিয়া খাতুন নিহত হন। পরে পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা অন্তঃসত্ত্বা জিকু আকতারসহ আহত অন্যান্যকে উদ্ধার করে রাউজানের নোয়াপাড়া-পথেরহাট এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান।

নিহত নারীর স্বজন মুহাম্মদ শাহজাহান রাত ১০টার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর খালা জিকু আকতারের প্রসববেদনা উঠলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন সাজিয়া খাতুন, জুলেহা বেগম ও আজগর। পথে পিকআপের ধাক্কায় সাজিয়া খাতুন মারা যান। বাকিরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শাহজাহান বলেন, অন্তঃসত্ত্বা জিকু আকতার যেটুকু জখম হয়েছেন, তার চিকিৎসা চলছে। হাসপাতালের চিকিৎসকেরা গর্ভের বাচ্চা সুস্থ আছে বলে জানিয়েছেন। তবে এখনো বাচ্চা প্রসব হয়নি।

নোয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই জয়নাল আবেদীন বলেন, হতাহত ব্যক্তিরা অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন। আহত তিনজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পিকআপের চালক মো. আলমকে (২৫) আটক করা হয়েছে। তবে হতাহত ব্যক্তিদের পরিবার বলছে মামলা করবে না। এ ঘটনায় আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন