default-image

চট্টগ্রামের রাউজানে পারিবারিক কলহের জেরে মুহাম্মদ রিদোয়ান (২৮) নামের এক তরুণ তাঁর ভাবি (৩৫) ও কলেজপড়ুয়া ভাতিজিকে (১৮) বঁটি দিয়ে কুপিয়ে পায়ে ও ঘাড়ে গুরুতর জখম করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় তাঁদের রক্ষা করতে এগিয়ে এলে নিজের ভাই মুহাম্মদ ওসমানকেও (৪৩) তিনি কুপিয়ে আহত করেন।

আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কচুখাইন গ্রামের খন্দকার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের স্থানীয় ব্যক্তিরা উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। ঘটনার পর বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছেন অভিযুক্ত মুহাম্মদ রিদোয়ান।

সকালে ঘুম থেকে উঠেই ছোট ভাই রিদোয়ান আমার মেয়ে ও স্ত্রীকে পায়ে ও ঘাড়ে কোপায়। আমি এবং আমার স্ত্রী ও মেয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছি।
মুহাম্মদ ওসমান, অভিযুক্তের বড় ভাই

স্থানীয় বাসিন্দা ও জনপ্রতিনিধির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল সোমবার রাতে মুহাম্মদ ওসমানের বাড়িতেই তাঁদের এক ভাগনির আকদ অনুষ্ঠান হয়। এতে আত্মীয়স্বজন সবাই ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে সবার উপস্থিতিতে তিন মাস আগে বিয়ে করা ছোট ভাই মুহাম্মদ রিদোয়ান যৌথ পরিবার থেকে আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত জানান। আজ সকালে ঘুম থেকে উঠে এক বোনের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয় রিদোয়ানের। এর জের ধরে তিনি ভাবি শামিমা আকতার (৩৫) ও ভাতিজি সম্মান দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সাদিয়া আকতারকে (১৮) বঁটি দিয়ে কোপান। এতে দুজনই ঘাড় ও পায়ে গুরুতর জখম হন। তাঁরা বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বিজ্ঞাপন

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত মুহাম্মদ ওসমান দুপুরে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘সকালে ঘুম থেকে উঠেই ছোট ভাই রিদোয়ান আমার মেয়ে ও স্ত্রীকে পায়ে ও ঘাড়ে কোপায়। আমি এবং আমার স্ত্রী ও মেয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছি।’

নোয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আবুল কাশেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এটি পারিবারিক কলহের ঘটনা। আহত ব্যক্তিরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন