বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরিবার ও থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাতে অনেকক্ষণ ধরে জেসমিন ঘর থেকে বের হচ্ছিল না। পরে পরিবারের লোকজন ঘরে ঢুকে দেখেন, ঘরের চালার সঙ্গে জেসমিনের লাশ ঝুলছে। পরে বিষয়টি থানায় জানানো হলে রাত নয়টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে। পরিবারের সদস্যরা ধারণা করছেন, জেসমিন অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে।

নিহত ছাত্রীর ভাই মুহাম্মদ হাসান প্রথম আলোকে বলেন, সন্ধ্যার পরও জেসমিন স্বাভাবিক ছিল। এরপর কীভাবে এ রকম ঘটনা ঘটল, সেটা কেউই বুঝতে পারছেন না। তিনি জানান, জেসমিনের গলায় স্কার্ফ পেছানো ছিল।

রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল হারুন প্রথম আলোকে বলেন, জেসমিন আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই স্কুলছাত্রী মায়ের সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে। তবে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে তার মৃত্যুর কারণটি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন