বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বন বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত মাসের ২৯ তারিখ রাতে হাতিটি উপজেলার শিলক ইউনিয়নের তৈলাভাঙ্গা বিলে কাদায় আটকে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় বন বিভাগ ১০ ঘণ্টা পর হাতিটি উদ্ধার করে বনে ফিরিয়ে দেয়।

এর পর থেকে বেশ কয়েকবার হাতিটি লোকালয়ে চলে আসে। যতবার আসে ততবারই বন বিভাগ ও স্থানীয় লোকজন হাতিটিকে খাবার খাওয়ানোর চেষ্টা করে। সবশেষ গতকাল লোকালয়ে আসার পর হাতিটি কোনো খাবার খাচ্ছিল না।

জানতে চাইলে বন বিভাগের রাঙ্গুনিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মাসুম কবির বলেন, বন্য প্রাণী বিশেষজ্ঞদের মতে, হাতিটি অসুস্থ হয়ে বারবার লোকালয়ে চলে আসছিল। তাই হাতিটির উন্নত চিকিৎসা জন্য ডুলাহাজরা নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ৬ মে হাতিটি লোকালয়ে এলে তাকে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে স্যালাইন পুশ করা হয়, খাবারও খাওয়ানো হয়। আজ শনিবার সকালে জানা গেছে, হাতিটি খাবার খাচ্ছে। তাকে কলা, শসা ও বরবটি খেতে দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন