বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার দাবিতে গণ-অনশন কর্মসূচি পালন করছে রাজশাহী মহানগর বিএনপি। আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে রাজশাহীর মালোপাড়া ভুবন মোহন পার্ক চত্বরে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এই কর্মসূচি চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

মিজানুর রহমান বলেন, খালেদা জিয়া অতীতে ইংল্যান্ড, আমেরিকা ও সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিয়েছেন। আজ তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। এই মুহূর্তে তাঁকে মুক্তি দিয়ে তাঁর সুচিকিৎসার প্রয়োজন।

কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে মিজানুর রহমান মিনু বলেন, ‘অবৈধভাবে ক্ষমতায় থেকে এই সরকার খালেদা জিয়াকে শুধু মিথ্যা মামলায় নয়, পরিকল্পিতভাবে মৃত্যুর দিকে নিয়ে যাচ্ছে। সারা দেশের গণতান্ত্রিক মানুষ খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও মুক্তির জন্য শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছে। খালেদা জিয়া অতীতে ইংল্যান্ড, আমেরিকা ও সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিয়েছেন। আজ তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। এই মুহূর্তে তাঁকে মুক্তি দিয়ে তাঁর সুচিকিৎসার প্রয়োজন। এমন অবস্থায় এই সরকার তাঁকে মুক্তি দেবে কি না, তা জানি না। তবে রাজপথে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমেই তাঁকে মুক্ত করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।’

আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বক্তব্য টেনে তাঁর উদ্দেশে রাজশাহী সিটির সাবেক এই মেয়র বলেন, সাবেক সেনাপ্রধানের ভাই জোশেফ কীভাবে দেশের বাইরে থেকে রাষ্ট্রপতির ক্ষমা পান। অতীতে আ স ম আবদুর রব কারাগারে ছিলেন। এই অবস্থায় তাঁকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো হয়েছিল। এগুলো তো জ্বলন্ত উদাহরণ।

বিএনপির নেতারা গণ-অনশন কর্মসূচিতে বলেন, খালেদা জিয়া বাংলাদেশের তিনবারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী, দুইবারের বিরোধী দলের নেতা। তিনি দীর্ঘ ৯ বছর আন্দোলনের মাধ্যমে এ দেশে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেন। আজ তাঁকে রাজনৈতিক মামলায় কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। এটা চলতে পারে না। তিনি গুরুতর অসুস্থ, তাঁর সুচিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা নেই। একজন নাগরিক হিসেবে সুচিকিৎসা পাওয়া তাঁর মৌলিক অধিকার। কিন্তু সরকার মিথ্যা অজুহাত দেখিয়ে তাঁকে সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করছে।

কর্মসূচিতে রাজশাহী-৫ আসনের সাবেক সাংসদ নাদিম মোস্তফা বলেন, সরকার চাইলেই খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে পারে। কিন্তু প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে এই সরকার।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন