default-image

রাজবাড়ীতে সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ৩২ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলার মোট কোভিড–১৯ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪৮৯। সর্বশেষ ১৬৯ জনের নমুনা গত ২৭ জুন পাঠানো হয়েছিল।

সিভিল সার্জনের কার্যালয় এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য অনুসারে, রাজবাড়ীতে প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত ১১ এপ্রিল। এখন পর্যন্ত মোট ৪ হাজার ৬৮১ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ৪ হাজার ৩২০ জনের পরীক্ষার ফলাফল পাওয়া গেছে। অপেক্ষমাণ আছে ৩৬১টি। জেলায় এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৪৭ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৪৯ জন।

নতুন শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রাজবাড়ী সদর উপজেলায়, ২০ জন। এ ছাড়া পাংশা উপজেলায় সাতজন, গোয়ালন্দে চার ও কালুখালী উপজেলায় একজন। সংক্রমণের ঝুঁকি থাকায় রাজবাড়ী পৌর শহরের ৩, ৪ ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ ঘোষণার প্রস্তাব গত সপ্তাহে রাজবাড়ী সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে পাঠানো হয়েছে।

সিভিল সার্জন মো. নুরুল ইসলাম বলেন, বড় এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করলে তা কার্যকর করা অনেক ক্ষেত্রে সম্ভব হয় না। এ কারণে একটি বা দুটি বাড়ি ধরে লকডাউন করা যায় কি না, তা সরকার চিন্তাভাবনা করছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই।

জানা গেছে, কালুখালী ও বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগ ছাড়া অন্যান্য চিকিৎসাসেবা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অপর দিকে কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কোভিড–১৯ আক্রান্ত রোগীদের জন্য নির্ধারিত হওয়ায় সেখানে সাধারণ চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0