default-image

রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের গঙ্গাপ্রসাদপুর গ্রামের দুই সংখ্যালঘুর বাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আজ শুক্রবার তপন কুমার শীল বাদী হয়ে রাজবাড়ী সদর থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা হলেন তপন কুমার শীল, গোবিন্দ শীল ও ধীরেন শীল। তাঁরা সবাই উপজেলার গঙ্গাপ্রসাদপুর গ্রামের বাসিন্দা।

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত দুইটার দিকে তপন শীলের বাড়ির রান্নাঘরে আগুন দেওয়া হয়। আগুন দেখতে পেয়ে প্রতিবেশীদের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এরপর তাঁর বাড়ির পাশে ধীরেন শীলের বাগানে রাখা জ্বালানিতে (পাতা) আগুন দেওয়া হয়। পরে খড়ের সঙ্গে আগুন জানালা দিয়ে গোবিন্দর ঘরে ছুড়ে মারা হয়। এতে ঘরে থাকা আসবাব পুড়ে যায়। তবে গৃহকর্তা ঢাকায় থাকায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, নেশাখোরেরা এই কাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। কিছুদিন আগে সদর উপজেলায় ও কালুখালী উপজেলায় এ ধরনের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

প্রসঙ্গত, ২২ মার্চ রাতে সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের রামকান্তপুর গ্রামে সাতটি বাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা হলেন আবুল কাশেম ভূইয়া, আবু মিয়া, রাকিবুল হাসান ইসমাইল, মিলন মিয়া, আমেনা বেগম, টোকন শেখ ও জালাল উদ্দিন বিশ্বাস। এঁদের মধ্যে রাকিবুল ইসলামের গোয়ালঘরে ও জালাল উদ্দিনের খড়ের গাদায় আগুন দেওয়া হয়। অন্য পাঁচজনের রান্নাঘরে আগুন দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন