পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে দামকুড়া থানাধীন দামকুড়া উচ্চবিদ্যালয়ের ভবনের একটু পেছনে একটি আমবাগানে লাশ দেখে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে ফোন দেন। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠায়।

পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ বা মামলা হয়নি।

পরিবার ও এলাকাবাসীর বরাতে পুলিশ জানিয়েছে, বাবুল অনেক আগে থেকে ক্যানসারে ভুগছিলেন। তিনি নিয়মিত নেশাও করতেন। নেশার কারণে স্ত্রী অনেক আগে তাঁকে ছেড়ে চলে গেছেন। বাবুলের ছেলে দশম শ্রেণিতে পড়ে।

দামকুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম বলেন, লাশের পাশে বমি পড়ে ছিল। শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত নেশা করার কারণে তিনি অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন এলে বিষয়টি নিশ্চিতভাবে বলা যাবে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ বা মামলা হয়নি। তবে এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে বলে তিনি জানান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন