বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন রাজশাহী নগরের রামচন্দনপুর এলাকার মো. আমিনুল (৩৮), নগরের দরগাপাড়া এলাকার মো. আসাদ আলী ওরফে সুজন (৪০), মো. স্বাধীন (২৮), হোসনিগঞ্জ এলাকার গোলাম রাব্বানী ওরফে বাপ্পি (৩৫), নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর থানার নিজবাড়ী এলাকার শ্রী সুজন (৩২), রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার পাচুবাড়ী গ্রামের মো. শহিদুল (২২), নগরের বেলপুকুর থানার ছত্রগাছা গ্রামের মোকলেছুর রহমান (৪৮), নারায়ণপুর গ্রামের মো. নসিব আলী (২৫) ও রাজশাহী নগরের মো. শাহিন (৩৩)। গ্রেপ্তার হওয়া বাকি সাতজন নারী হওয়ায় তাঁদের নাম–পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

র‌্যাব জানিয়েছে, পাচারকারী চক্রের মাধ্যমে ভুক্তভোগী এক নারীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার রাতে রাজশাহী নগরের একটি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালানো হয়। অভিযানের সময় পাচারকারী চক্রের ১৬ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় ৪টি জেল, ৪ বোতল নারকেল তেল, ১০০টি ভিজিটিং কার্ড, ২১টি মুঠোফোন জব্দ ও নগদ ১ লাখ ৯ হাজার ২০ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় রাজশাহী নগরের বোয়ালিয়া মডেল থানায় র‌্যাব আজ সকালে বাদী হয়ে মানব পাচার আইনে মামলা করেছে। সেই মামলায় ওই ১৬ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

র‌্যাবের নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মো. সানরিয়া চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, চক্রটি কাজ দেওয়ার কথা বলে রংপুর, বরিশাল, দিনাজপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রতারণা করে অসহায় নারীদের নিয়ে আসত। চক্রটির প্রধান কেন্দ্রস্থল রাজশাহী। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বোয়ালিয়া মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, আজ বেলা দুইটার দিকে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন