বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মিছিলে জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান, সদস্যসচিব রেজাউল করিম, জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার আলম, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আরফিন কনকসহ অন্য নেতা–কর্মীরা ছিলেন। পুলিশ তাঁদের লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

কয়েকজন নেতা–কর্মী বলেন, তাঁদের সামনে পুলিশের পোশাক পরা কয়েকজন হেঁটে যাচ্ছিলেন। তাঁরা তাঁদের বাধা দেননি। দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে নেতা–কর্মীরা মিছিলটি নিয়ে নগরের বাটার মোড়ে মুক্তা হোটেলের সামনে একটি সমাবেশ করতে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ তিনটি মোটরসাইকেলে ডিবি পুলিশের ছয়জন এসে তাঁদের লাঠিপেটা শুরু করেন।

একপর্যায়ে পুলিশ তাঁদের ব্যানার কেড়ে নেয়। ছত্রভঙ্গ হয়ে নেতা–কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে ফিরে গেলে পুলিশ সেখানে গিয়েই লাঠিপেটা করার হুমকি দেয়। শেষ পর্যন্ত কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়। গত বৃহস্পতিবার সৈয়দ শাহিন শওকতের বাসায় বোমা বিস্ফোরণ হয়েছিল।

রাজশাহী জেলা যুবদলের সদস্যসচিব রেজাউল করিম বলেন, বিনা উসকানিতে পুলিশ তাঁদের লাঠিপেটা করে। এতে তাঁদের অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন।

তবে নগরের বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম বলেন, লাঠিপেটা করা হয়নি। নেতা–কর্মীরা নিজেরাই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন