বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে রাজশাহী নগরের নিউমার্কেট এলাকায় ২০১০ সালের ১৫ মার্চ সন্ধ্যায় রাজু আহমেদ নামের এক যুবককে পিটিয়ে ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। নিউমার্কেট এলাকায় রাজুর মুঠোফোনের দোকান ছিল। তাঁকে হত্যার ঘটনায় পরদিন তাঁর বাবা এসার উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু বলেন, মাহাবুর রশীদের সঙ্গে বাগমারার একটি জমি নিয়ে রাজুর পরিবারের বিরোধ ছিল। এর জেরে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের নিয়ে রাজুকে হত্যা করেন মাহাবুর রশীদ। এ মামলায় ৫৮ জন সাক্ষী ছিলেন। ৩১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করে এই রায় ঘোষণা করেন আদালত। মামলায় মোট আসামি ছিলেন ১৪ জন। এর মধ্যে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় নয়জনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। রায় ঘোষণার সময় সব আসামি আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণা শেষে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত পাঁচজনকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

আসামিপক্ষের আইনজীবীদের একজন ছিলেন মিজানুল ইসলাম। রায়ের বিষয়ে প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, তাঁরা অবশ্যই আপিল করবেন এবং তাঁর দৃঢ় বিশ্বাস উচ্চ আদালতে এই রায় টিকবে না।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন